Muntakhab Hadith

 
 
SIFAT
Kalimah Tayyibah  
SECTION
Iman  
Type
Hadith  
SERIAL NUMBER
14  
الحديث فى العربى
ِعَنْ اِبْنِ شِمَاسَةِ الْمَهْرِيِّ، قَالَ: حَضَرْنَا عَمْرَو بْنِ الَعَاصِ، وَهُوَ فِيْ سِيَاقَةِ الْمَوْتِ، يَبْكِيْ طَوِيْلاٌ، وَحَوَّلَ وَجْهَهُ إِلَى الْجِدَارِ فَجَعَلَ ِابْنُهُ يَقُوْلُ: يَا أَبْتَاهُ، أَمَا بَشَّرَكَ رَسُوْلُ الله صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ بِكَذَا ؟ أَمَا بَشَّرَكَ رَسُوْلُ الله صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ بِكَذَا ؟ ؟َ قاَلَ: فَأَقْبَلَ بِوَجْهِهِ، فَقَالَ: إِنَّ أَفْضَلَ ماَ نُعِدُّ شَهَادَةُ أَنْ لاَ إِلَهَ إِلَّا اللهُ، وَأَنَّ مُحَمَّدًا رَسُوْلُ الله، إِنّيْ قَدْ كُنْتُ عَلَى أَطْبَاقٍ ثَلاَثٍ، لَقَدْ رَأَيْتُنِيْ وَمَا أَحَدُ أَشَدُّ بَغْضًا لِرَسُوْلِ اللهِ صَلَّى ِاللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مِنّيْ، وَلاَ أَحَبَّ إِلَيَّ أَنْ أَكُوْنَ قَدْ اَسْتمَْكَنْتُ مِنْهُ، فَقَتَلتْهَُ، فَلَوْ مُتُّ عَلَى تِلْكَ اْلحَالِ لَكُنْتُ مِنْ أَهْلِ النَّار . فَلَمَّا جَعَلَ اللهُ الْإِسْلاَمَ فِيْ قَلْبِيْ أَتَيْتُ الَنبِيِّ صَلَّى اللهُ عَليْهِ وَسَلَّمَ، فَقُلْتُ: اَبْسُطْ يَمِيْنَكَ فَلأََبَايِعْكَ، فَبَسَطَ يَمِيْنَهُ، قَالَ: فَقْبَضْتُ يَدَيَّ، قَالَ: " مَا لَكَ يَا عَمْرُو؟ " قاَلَ: قُلْتُ: َأَرَدْتُ أَنْ أَشْتَرِطُ، قَالَ : " تَشْتَرُطُ بِمَاذَا؟ " قُلْتُ : أَنْ يَغْفِرَ لِيْ ، قَالَ: " أَماَ عَلِمْتَ أَنَّ الْإِسْلاَمَ يَهْدِمُ مَا كَانَ قَبْلَهُ؟ وَأَنَّ الْهِجْرَةَ تَهْدِمُ ماَ كَانَ قَبْلَهَا؟ وَأَنَّ الْحَجَّ يَهْدِمُ مَا كاَن قَبْلَهُ؟ " . ْوَمَا كَانَ أَحَدٌ أَحَبٌّ إِلَيَّ مِنْ رَسُوْلِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَلاَ أَجَلَّ فِيْ عَيْنَيَّ مِنْهُ، وَمَا كُنْتُ أَطِيْقُ أَنْ أَمْلأَ عَيْنِيْ مِنْهُ إِجْلاَلاُ لَهُ، وَلَوْ سُئِلْتُ أَنْ أَصِفَهُ مَا أَطَقْتُ؛ لِأنِّيْ لَم ِأكُنْ أَمْلأَ عَيْنَيَّ مِنْهُ، وَلَوْ مُتُّ عَلَى تِلْكَ الْحَالِ لِرَجَوْتُ أَنْ أَكُوْنَ مِنْ أَهْلِ الْجَنَّةَ . ُثُمَّ وَلِيْنَا أَشْيَاءَ مَا أَدْرِيْ مَا حَالِيْ فِيْهَا، فَإِذَا أَنَا مُتُّ فلَاَ تَصَحَبْنِيْ نَاِئحَةُ، وَلاَ نَارٌ، فَإِذَا دَفَنْتُمُوْنِيْ فَشُنُّوْا عَلَيَّ التُّرَابَ شِنٌّا، ثُمَّ أَقِيْمُوْا حَوْلَ قَبْرِيْ قَدْرَ مَا تَنْحَرُ جُزُوْرُ وَيُقْسِم ْلَحْمُهَا، حَتّىَ أَسْتَأْنِسَ بِكُمْ، وَأَنْظِرُ مَاذَا أُرَاجِعَ بِهِ رُسُلَ رَبِّي  
হাদিস বাংলা
হযরত ইবনে শিমাসা মাহরী (রহঃ) বর্ণনা করেন যে, আমরা হযরত আমর ইবনে আস (রাযিঃ) এর মৃত্য সময় তাহার নিকট উপস্থিত ছিলাম| তিনি দেওয়ালের দিকে মুখ ফিরাইয়া দীর্ঘ সময় পর্যন্ত কাঁদিতেছিলেন|তাহার পুত্র তাহাকে সান্তনা দেওয়ার জন্য বলিতেছিলেন, আব্বাজান! নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাল্লাম কি আপনাকে অমুক সুসংবাদ দেন নাই ? নবী করীম সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম কি আপনাকে অমুক সুসংবাদ দেন নাই ? অর্থ্যাৎ আপনাকে তো নবী করীম সাল্লাল্লাহূ আলাইহি ওয়াসাল্লাল্লাম বড় বড় সুসংবাদ দান করিয়াছেন| ইহা শুনিয়া তিনি (দেওয়ালের দিক হইতে) মুখ ফিরাইলেন এবং বলিলেন, সর্বোত্তম জিনিস যাহা আমরা (আখেরাতের জন্য) তৈয়ার করিয়াছি তাহা এই কথার সাক্ষ্য যে, আল্লাহ তায়ালা ছাড়া কোন মাবুদ নাই, এবং হযরত মুহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আল্লাহ তালায়ার রসুল। আমার জীবনে তিনটি যুগ অতিবাহিত হইয়াছে। এক যুগ ছিল যখন আমার অপেক্ষা অধিক রাসুলুল্লাহ সাল্লল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সহিত বিদ্বেষ পোষণকারী আর কেহই ছিল না। তখন আমার সবচেয়ে বড় আকাংখা এই ছিল যে, কোন প্রকারে যদি তাহার উপর আমি সুযোগ পাইয়া যাই তবে তাহাক হত্যা করিয়া ফেলিব। ইহা তো আমার জীবনের সবচেয়ে নিকৃষ্টতম যুগ ছিল।(আল্লাহ না করুন) যদি আমি সেই মৃত্যবরন করিতাম তবে নিঃসন্দেহে জাহান্নামী হইতাম।অতঃপর আল্লাহ তায়ালা যখন আমার অন্তরে ইসলামের সত্যতা ঢালিয়া দিলেন তখন আমি তাঁহার নিকট আসিলাম এবং আমি আরজ করিলাম, আপনার হাতে বাইয়াত করিব। হুযুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আপন হাত মোবারক বাড়াইয়া দিলেন, তখন আমি আমার হাত পিছনে টানিয়া নিলাম, তিনি বলিলেন,হে আমর কি ব্যাপার ? বলিলাম, আমি কিছু শর্ত আরোপ করিতে চাই তিনি বলিলেন, কি শর্ত আরোপ করিতে চাও? আমি ইহা বলিলাম যে আমার সমস্ত গুনাহ যেন মাফ হইয়া যায় হুযূর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলিলেন, হে আমর! তুমি কি জাননা যে, ইসলাম কুফরী জিন্দেগীর সমস্ত গুনাহকেই পরিস্কার করিয়া দেয় ? আর হিজরত ও পূর্বের সমস্ত গুনাহ মাফ দেয় আর হজ্জ ও পিছনের সমস্ত গুনাহ শেষ করিয়া দেয়। ইহা সেই যুগ ছিল যখন তাঁহার চেয়ে বেশী প্রিয়, তাহার চেয়ে বেশী সম্মা্নী ও মর্যাদাসম্পন্ন আমার আর কেহই ছিল না তাঁহার কারনে কখনো তাঁহাকে পুর্ন দেখিবার ক্ষমতা আমার ছিল না। যদি আমাকে তাঁহার চেহারা মোবারক সম্পর্কে করা হয় তবে আমি কিছুই বলিতে পারিব না। কেননা আমি কখনও তাহাকে পরিপূর্ণরূপে দেখিই নাই। হায়,যদি আমি সেই মরিয়া যাইতাম তবে আমার আশা হয় যে আমি জান্নাতী হইতাম। অতঃপর আমরা কিছু জিনিসের মুতাওয়াল্লী ও জিম্মাদার হইয়াছি এবং জানি না যে, আমাদের ঐ সকল জিনিসের মধ্যে কিরূপ রহিয়াছে। (ইহা আমার জীবনের তৃ্তীয় যুগ ছিল) আচ্ছা দেখ যখন আমর মৃত্যু হইয়া যাইবে তখন আমার (জানাযার) সহিত যেন কোন বিলাপকারিণী মহিলা যাইতে না পারে।(জাহিলিয়াতের যুগে মত) আমার জানাযার সহিত যেন আগুন না নেওয়া হয়। যখন আমাকে দাফন কার্য শেষ করিবে তখন আমার কবরের উপরে ভালোভাবে মাটি দিও। আর যখন (এক কাজ হইতে অবসর) হইয়া যাইবে তখন আমার কবরের নিকট এই পরিমান সময় অপেক্ষা করিও যে পরিমান সময়ের মধ্যে একটি উট জবাই করিয়া উহার গোশত বণ্টন করা যায়। যাহাতে তোমাদের কারনে আমর অন্তর সান্তনা লাভ করে এবং আমি বুঝিয়া লইতে পারি যে, আমি আপন রবের প্রেরিত ফেরেশতাদের প্রশ্নের কি উত্তর দিতেছি। (মুসলিম)   
HADITH ENGLISH
Ibn-e-Shimasa Al Mahri Rahimahullah narrates that we were present with 'Amr ibnil-'As Radiyallahu 'anhuma while he was in the throes of death. After weeping continously, he turned his face towards the wall. At this, his son consoled him saying: O my father! Has Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam not given you the glad tidings of such and such? Has Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam not given you the glad tidings of such and such? He then faced us and said: Verily the most excellent thing that we prepare (for ourselves) is the testimony of La ilaha illallahu wa anna Muhammad ur Rasulullah (There is none worthy of worship except Allah, and that Muhammad is His Messenger). Indeed I have passed my life through three stages. I had seen myself when there was no one more bitter in hatred towards Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam than myself, and no one more desiring to seize an opportunity to kill him than myself! And had I died in that state, I certainly would have been of the people of the Fire. Then, Allah placed Islam in my heart, I came to Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam and said: Give me your right hand so that I may pledge allegiance to you. He extended his right hand, but I withdrew my hand. At this, he asked: What is with you O 'Amr? I said: I want to make a condition. He said: Make a condition of what? I said: That I be forgiven! He said: Did you not know that (the acceptance of) Islam eradicates the sins committed before it and Hijrah (migration) eradicates the sins committed before it and that Hajj (pilgrimage) eradicates the sins committed before it. @ +@And (thereafter) no one was more revered to me than Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam. And I could not bear to fill my eyes (with the sight) of him out of reverence for him. And if I were asked to describe him, I would not be able to do so, as I never looked at him to my fill; and had I died in that state, I would have been hopefully amongst the people of Paradise. Afterwards, we were given responsibilities regarding which I know not how I have fared. (This was the third phase of my life) So when I die (see that) I am not accompanied by a wailing woman, or a fire. When you have buried me, mould the mud upon my grave (in the shape of) a mound, then remain standing around my grave for such time as it would take to slaughter a camel and distribute its meat, so that I may feel solace from you, while I see what reply I give to the messengers (angels) of my Rabb. (Muslim)  
 
 
 
previous   Next