Muntakhab Hadith

 
 
SIFAT
Ikhlas  
SECTION
Sincerity of Intention  
Type
Hadith  
SERIAL NUMBER
9  
الحديث فى العربى
عَنْ أَبِىْ كَبْشَةَ الأَنْمَارِىِّ رَضِىَ اللهُ عَنْهُ أَنَّهُ سَمِعَ رَسُوْلَ اللهِ ﷺ يَقُوْلُ : ثَلاَثٌ أُقْسِمُ عَلَيْهِنَّ وَأُحَدِّثُكُمْ حَدَيْثًا فَاحْفَظُوْهُ ، قَالَ : مَا نَقَصَ مَالُ عَبْدٌ مِنْ صَدَقَةٍ ، وَلاَظُلِمَ عَبْدٌ مَظْلَمَةً صَبَرَ عَلَيْهَا إِلاَّ زَادَهُ اللهُ عِزًّا ، وَلاَ فَتَحَ عَبْدٌ بَابَ مَسْئَلَةِ إِلاَّ فَتَحَ اللهُ عَلَيْهِ بَابِ فَقْرٍ _ أَوْ كَلِمَةٍ نَحْوَهَا _ وَأُجَدِّثُكُمْ حَدِيْثًا فَاحْفَظُوْهُ ن قَالَ : إِنَّمَا الدُّنْيَا لأَرْبَعَةِ نَفَرٍ : عَبْدٍ رَزَقَهُ اللهُ مَالاً وَعِلْمًا فَهُوَ يَتَّقِىْ رَبَّهُ فِيْهِ وَيَصِلُ بِهِ رَحِمَهُ وَيَعْلَمُ لِللهِ فِيْهِ حَقًّا فَهٰذَا بِأَفْضَلِ الْمَنَازِلِ ، وَعَبْدٍ رَزَقَهُ اللهُ عِلْمًا وَلَمْ يَرْزُقْهُ مَالاً فَهُوَ صَادِقُ النَّبِيَّةِ ، يَقُوْلُ : لَوْأَنَّ لِىَ مَالاَ لَعَمِلْتُ فِيْهَ بِعَمَلٍ فُلاَنٍ فَهُوَ بِنيَّتِهِ فَأَجْرُهُمَا سَوَاءٌ ، وَعَبْدٍ رَزَقَهُ اللهُ مَالاً وَلَمْ يَرْزُقْهُ عِلْمًا فَهُوَ يَجْبِطُ فِىْ مَلِهِ بِغَيْرِ عِلْمٍ لاَ يَتَّقِىْ فِيْهِ رَبَّهُ وَلاَ يَصِلُ فِيْهِ رَحِمَهُ وَلاَ يَعْلَمُ لِلهِ فِيْهِ حَقًّا فَهٰذَا بِأَخْبَثِ الْمَنَازِلِ ، وَعَبْدٍ لَمْ يَرْزُقُهُ اللهُ مَالاً وَلاَ عِلْمًا فَهُوَ يَقُوْلُ : لَوْأَنَّ لِىَ مَالاً لَعَمِلْتُ فِيْهِ بِعَمَلِ فُلاَنٍ فَهُوَ بِنِيَّتِهِ فَوِزْرُهُمَا سَوَاءٌ . ( رواه التر مذى وقال : هذا حديث حسن صحيح ، باب ماجاء مثل الدنيا مثل اربعة نفره ، رقم : )  
হাদিস বাংলা
হযরত আবু কাবশাহ আনসারী (রাযি:) হইতে বর্ণিত আছে যে, তিনি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে এই এরশাদ করিতে শুনিয়াছেন যে, আমি কসম খাইয়া তিনটি জিনিস বর্ণনা করিতেছি এবং উহার পর একটি কথা বিশেষভাবে তোমাদিগকে বলিব। উহা ভালভাবে স্বরণ রাখিও। (তিনটি কথা যাহার উপর আমি কসম খাইতেছি, তন্মধ্যে প্রথমটি এই যে,) সদকা করার দ্বারা কোন বান্দার মাল কম হ্য় না। (দ্বিতীয় এই যে,) যাহার উপর জুলুম করা হয় এবং সে উহার উপর সবর করে আল্লাহ তায়ালা এই সবরের কারণে তাহার সম্মান বৃদ্ধি করিয়া দেন। (তৃতীয় এই যে,) যে ব্যক্তি লোকদের নিকট ভিক্ষার দরজা খুলে আল্লাহ তায়ালা তাহার উপর অভাবের দরজা খুলিয়া দেন। অত:পর তিনি এরশাদ করিলেন, একটি কথা তোমাদিগকে বলিতেছি উহা স্বরণ রাখিও। দুনিয়াতে চার প্রকারের মানুষ হয়। এক- ঐ ব্যক্তি যাহাকে আল্লাহ তায়ালা মাল ও এলেম দান করিয়াছেন। সে (আপন এলেমের কারণে) নিজের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করে। (অর্থাৎ তাহার মর্জির খেলাপ খরচ করে না, বরং) আত্নীয়তা রক্ষা(য় খরচ) করে এবং সে ইহাও জানে যে, এই মালের মধ্যে আল্লাহ তায়ালার হক রহিয়াছে (কাজেই নেক কাজে মাল খরচ করে)। এই ব্যক্তি কেয়ামতের দিন সর্বোত্তম মর্তবায় অবস্থান করিবে। দ্বিতীয় ঐ ব্যক্তি যাহাকে আল্লাহ তায়ালা এলেম দান করিয়াছেন, কিন্তু মাল দেন নাই। সে খাঁটি নিয়ত রাখে এবং এই আকাঙ্খা করে যে, যদি আমার নিকট মাল থাকিত তবে আমিও অমুকের মত (নেক কাজে) খরচ করিতাম। (আল্লাহ তায়ালা) তাহার নিয়তের কারণে (তাহাকেও প্রথম ব্যক্তির ন্যায় একই সওয়াব দান করেন।) এইভাবে তাহাদের উভয়ের সওয়াব সমান সমান হইয়া যায়। তৃতীয় ঐ ব্যক্তি যাহাকে আল্লাহ তায়ালা মাল দিয়াছেন,কিন্তু এলেম দান করেন নাই। সে এলেম না থাকার দরুন নিজের মালের মধ্যে গোলমাল করে। (অপাত্রে খরচ করে।) না সে এই মালের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করে, না আত্নীয়তা রক্ষা করে । আর না ইহা জানে যে, এই মালের মধ্যে আল্লাহ তায়ালার হক রহিয়াছে। এই ব্যক্তি কেয়ামতের দিন নিকৃষ্টতম মর্তবায় থাকিবে। চতুর্থ ঐ ব্যক্তি যাহাকে আল্লাহ তায়ালা না মাল দিয়াছেন, না এলেম দিয়াছেন। সে এই আকাঙ্খা করে যে, যদি আমার নিকট মাল থাকিত তবে আমিও অমুকের অর্থাৎ তৃতীয় ব্যক্তির ন্যায় (অপাত্রে খরচ) করিতাম। এই নিয়তের কারণে তাহার গুনাহ হয় এবং তাহার ও তৃতীয় ব্যক্তির গুনাহ সমান সমান হইয়া যায়। অর্থাৎ ভাল অথবা মন্দ নিয়ত অনুপাতে সওয়াব ও গুনাহ হয় যেমন ভাল অথবা মন্দ আমলের উপর হইয়া থাকে। (তিরমিযী)   
HADITH ENGLISH
Abu Kabshah Al Anmari Radiyallahu 'anhu narrates: I heard Rasulullah Sallallahu 'alaihi wasallam saying: I swear by Allah upon three things, and then I will especially tell you something afterwards.. So, remember it well! Then he said: The wealth of a man does not decrease by giving Sadaqah. If a person endures oppression patiently, Allah increases his honour. If a person opens the door of begging, Allah opens the door of poverty upon him (or said something similar). Then he said: I am going to tell you something, so remember it well. Then he said: There are four types of people in the world. 1. The slave of Allah whom Allah has bestowed wealth and knowledge; He fears Allah regarding his wealth, and through this knowledge he spends to strengthen relationships and he knows that there is a right of Allah in it; he will be in the best of ranks. 2. The slave of Allah whom Allah has given knowledge but no wealth, and he is sincere in his intention. He says: Had I been given wealth I would have spent it just like the other person, and for his intention both will be given the same reward. 3. The slave of Allah whom Allah has given wealth but no knowledge, and he spends his wealth haphazardly and he does not fear his Rabb in respect of it; he does not discharge his obligations of kinship, and does not know that Allah has a right on it. He will be in the worst of ranks. 4. The slave of Allah whom Allah has given neither wealth nor knowledge, says: Had I been given wealth, I would have spent it just like the other (third) person; for his intention, the burden of both will be alike. (Tirmidhi)  
 
 
 
previous   Next