Muntakhab Hadith

 
 
SIFAT
Ikram-ul-Muslim  
SECTION
Rights of Muslims  
Type
Hadith  
SERIAL NUMBER
175  
الحديث فى العربى
عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ رَضِىَ اللهُ عَنْهُ قَالَ : كُنَّا جُلُوْسًا مَعَ رَسُوْلِ اللهِ ﷺ فَقَالَ : يَطْلُعُ الآنَ عَلَيْكُمْ رَجُلٌ مِنْ أَهْلِ الْجَنَّةِ فَطَلَعَ رَجُلٌ مِنَ الأَنْصَارِ تَنْطِفُ لِحْيَتُهُ مِنْ وُضُوْءِ هِ ، وَقَدْ تَعَلَّقَ نَعْلَيْهِ بِيَدِهِ الشِّمَالِ ، فَلَمَّا كَانَ الْغَدُ قَالَ النَّبِىُّ ﷺ مِشلُ ذٰلِكَ ، فَطَلَعَ الرَّجُلُ مِثْلَ الْمَرَّةِ الأُّوْلَى ، فَلَمَّا كَانَ الْيَوْمُ الثَّالِثُ قَالَ النَّبِىُّ ﷺ مِثْلَ مَقَالَتِهِ أَيْضًا ، فَطَلَعَ ذٰلِكَ الرَّجُلُ مِثْلَ حَالِهِ الأُوْلَى ، فَلَمَّا قَامَ النَّبِىُّ ﷺ تَبِعَهُ عَبْدُاللهِ بْنُ عَمْرٍو فَقَالَ : إِنِّىْ لاَ حَيْتُ أَبِىْ فَأَقْسَمْتُ أَنْ لاَ أَدْخُلَ عَلَيْهِ ثَلاَثًا ، فَإِنْ رَأَيْتَ أَنْ تُؤْوِ يَنِىْ إِلَيْكَ حَتّىٰ تَمْضِىَ فَعَلْتُ ؟ قَالَ : نَعَمْ ، قَالَ أَنَسٌ رَضِىَ اللهُ عَنْهُ : فَكَانَ عَبْدُاللهِ يُحَدِّثُ أَنَّهُ بَاتَ مَعَهُ تِلْكَ الثَّلاَثَ اللَّيْالِىَ ، فَلَمْ يَرَهُ يَقُوْمُ مِنَ اللَّيْلِ شَيْئًا غَيْرَ أَنَّهُ إِذَا تَعَارَّ وَتَقَلَّبَ عَلٰى فِرَاشِهِ ذَكَرَاللهَ عَزَّوَجَلَّ وَكَبَّرَ حَتّىٰ يَقُوْمَ لِصَلاَةِ الْفَجْرِ . قَالَ عَبْدُ اللهِ : غَيْرَ أَنِّىْ لَمْ أَسْمَعْهُ يَقُوْلُ إِلاَّ خَيْرًا ، فَلَمَّا مَضَتِ الثَّلاَثُ اللَّيْالِىْ وَكِدْتُّ أَنْ أَحْتَقِرَ عَمَلَهُ ، قُلْتُ : يَا عَبْدَاللهِ ! لَمْ يَكُنْ بَيْنِىْ وَبَيْنَ أَبِىْ غَضَبٌ وَلاَ هُجْرٌ وَلٰكِنِّىْ سَمِعْتُ رَسُوْلَ اللهِ ﷺ يَقُوْلُ لَنَا ثَلاَثَ مَرَّاتٍ : يَطْلُعُ عَلَيْكُمُ الآنَ رَجُلٌ مِنْ أَهْلِ الْجَنَّةِ فَطَلَعْتَ أَنْتَ الثَّلاَثَ الْمَرَّاتِ ، فَأَرَدْتُ أَنْ آوِىَ إِلَيْكَ فَأَنْظُرَ مَا عَمَلُكَ ؟ فَأَقْتَدِىْ بِكَ ، فَلَمْ أَرَكَ عَمِلْتَ كَثِيْرَ عَمَلٍ ، فَمَا الَّذِىْ بَلَغَ بِكَ مَا قَالَ رَسُوْلُ اللهِ ﷺ ؟ قَالَ : مَا هُوَ إِلاَّ مَا رَأَيْتَ ، قَالَ : فَلَمَّا وَلَّيْتُ دَعَانِىْ فَقَالَ : مَا هُوَ إِلاَّ مَا رَأَيْتَ غَيْرَ أَنِّىْ لاَ أَجْدُ فِىْ نَفْسِى لأَحَدٍ مِنَ الْمُسْلِمِيْنَ غَشًا وَلاَ أَحْسِدُ أَحَدًا عَلٰى خَيْرٍ أَعْطَاهُ اللهُ إِيَّاهُ ، فَقَالَ عَبْدُاللهِ : هٰذِهِ الَّتِىْ بَلَغَتْ بِكَ وَهِىَ الَّذِىْ لاَ نُطِيْقُ . ( رواه احمد والبزار بنحوه ورجال المد رجال الصحيح مجمع الزوائد : )  
হাদিস বাংলা
হযরত আনাস ইবনে মালেক (রাযিঃ) বলেন, আমরা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সঙ্গে বসিয়াছিলাম । তিনি এরশাদ করিলেন, এখনই তোমাদের নিকট একজন বেহেশতী লোক আসিবে । এমন সময় একজন আনসারী আসিলেন । যাহার দাড়ি হইতে অজুর পানির ফোটা টপকাইয়া পড়িতেছিল এবং তিনি জুতা বাম হাতে লইয়া রাখিয়াছিলেন । দ্বিতীয় দিনও রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঐ কথাই বলিলেন এবং সেই আনসারী ঐ অবস্থাতেই আসিলেন, যে অবস্থাতে প্রথমবার আসিয়াছিলেন । তুতীয় দিন আবার রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঐ কথাই বলিলেন এবং সেই আনসারী ঐ প্রথম অবস্থাতেই আসিলেন । যখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (মজলিস হইতে) উঠিলেন তখন হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রাযিঃ) সেই আনসারীর পিছনে গেলেন এবং তাহাকে বলিলেন, আমার পিতার সহিত আমার ঝগড়া হইয়া গিয়াছে, যে কারণে আমি কসম খাইয়াছি যে, তিন দিন তাহার নিকট যাইব না । যদি আপনি ভাল মনে করেন তবে আমাকে আপনার এখানে তিন দিন অবস্থান করিতে দিন । তিনি বলিলেন, বেশ ভাল । হযরত আনাস (রাযিঃ) বলেন, হযরত আবদুল্লাহ (রাযিঃ) বর্ণনা করিতেন যে, আমি তাহার নিকট তিন রাত্র অতিবাহিত করিয়াছি । আমি তাহাকে রাত্রে কোন এবাদত করিতে দেখি নাই । তবে যখন রাত্রে তাহার চোখ খুলিয়া যাইত এবং বিছানার উপর পার্শ্ব বদলাইতেন তখন আল্লাহ তায়ালার যিকির করিতেন ও আল্লাহু আকবার বলিতেন । এইবাবে ফজরের নামাযের জন্য বিছানা হইতে উঠিতেন । আরেকটি বিষয় ইহাও ছিল যে, আমি তাঁহার নিকট হইতে ভাল ছাড়া অন্য কিছু শুনি নাই । যখন তিন রাত্র অতিবাহিত হইয়া গেল এবং আমি তাঁহার আমলকে মামুলি মনে করিতে লাগিলাম (এবং আমি আশ্চর্যবোধ করিতেছিলাম যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাহার জন্য এত বড় সুসংবাদ দিয়াছেন অথচ তাঁহার কোন খাছ আমল তো নাই!) তখন আমি তাহাকে বলিলাম, হে আল্লাহর বান্দা, আমার এবং আমার পিতার মধ্যে না কোন অসন্তুষ্টি হইয়াছে এবং না কোন বিচ্ছেদ হইয়াছে । তবে ঘটনা এই যে, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে (আপনার সম্পর্কে) তিনবার এই এরশাদ করিতে শুনিয়াছি-এখনই তোমাদের নিকট একজন বেহেশতী লোক আসিবে । অতঃপর তিনবারই আপনি আসিয়াছেন । তখন আমি ইচ্ছা করিলাম যে, আমি আপনার এখানে থাকিয়া আপনার বিশেষ আমল দেখিব । যাহাতে (ঐ আমলগুলির ব্যাপারে) আপনার পদাঙ্ক অনুসরণ করিযা চলিব । আমি আপনাকে বেশী আমল করিতে দেখি নাই । (এখন আপনি বলুন,) আপনার ঐ বিশেষ আমল কোনটি যাহার কারণে আপনি এই মর্তবায় পৌঁছিয়াছেন? যাহা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আপনার সম্পর্কে এরশাদ করিয়াছেন । ঐ আনসারী বলিলেন, আমার কোন খাছ আমল তো নাই । এই সব আমলই আছে যাহা তুমি দেখিয়াছ । হযরত আবদুল্লাহ (রাযিঃ) বলেন, (আমি ইহা শুনিয়া রওয়ানা দিলাম ।) যখন আমি ফিরিয়া চলিলাম তখন তিনি আমাকে ডাকিলেন এবং বলিলেন, আমার আমল তো ঐগুলিই যাহা তুমি দেখিয়াছ । অবশ্য একটা কথা এই যে, আমার দিলের মধ্যে কোন মুসলমান সম্পর্কে কুটিলতা নাই এবং কাহাকেও আল্লাহ তায়ালা কোন খাছ নেয়ামত দিয়া রাখিলে উহার উপর আমি তাহাকে হিংসা করি না । হযরত আবদুল্লাহ (রাযিঃ) বলেন, ইহাই সেই আমল, যাহার কারণে আপনি ঐ মর্তবায় পৌঁছিয়াছেন । আর ইহা এমন আমল যাহা আমরা করিতে পারি না । (মুসনাদে আহমাদ, বাযযার, মাজমায়ে যাওয়ায়েদ)   
HADITH ENGLISH
Anas ibn Malik Radiyallahu 'anhu narrates that while we were sitting with Rasullullah Sallallahu 'alaihi wasallam, he said: A dweller of Paradise will come to you now. Then a man from Ansar came, from whose beard drops of water of ablution were falling and he was holding his shoes in his left hand. The second day Nabi Sallallahu 'alaihi wasallam repeated his words as the same Ansari came in the same condition he had come the first day. The third day Nabi Sallallahu 'alaihi wasallam repeated the same words as that Sahabi came in the same condition. When Nabi Sallallahu 'alaihi wasallam stood up, 'Abdullah ibn 'Amr Radiyallahu 'anhuma followed that Ansari to his house and said to him: I had a quarrel with my father and have vowed that I will not go to him for three days. If you allow, let me stay at your house till my oath is fulfilled? He said: Very well. Anas Radiyallahu 'anhu narrates: 'Abdullah . mentioned that he spent three nights with that Ansari but did not see him worshipping at night, except that when he awoke and changed his side on the bed, he praised Allah 'Azza wa Jalil and said: Allahuakbar (Allah is the Greatest), until he got up for Salat-ul-Fajr from his bed. 'Abdullah said: I did not hear him say anything except good. When three nights had passed and I considered his deeds to be quite ordinary, I said to the Ansari; O slave of Allah! There was no quarrel and separation between me and my father but I heard Rasullullah Sallallahu 'alaihi wasallam saying that the dweller of Paradise is coming to us and you came out on all three occasions. So, I decided to stay with you and see what (special) deed you perform? However, I did not see you doing anything extraordinary. What is that deed which raised you to the rank mentioned by Rasullullah Sallallahu 'alaihi wasallam? The Ansan replied: I have no deeds except that which you saw. 'Abdullah Radiyallahu 'anhu said: When I turned to go away, the Ansari called me back and said: I do not have any (special) deeds except for the ones you have seen. However I have no ill feelings in my heart about any Muslim and I am not jealous of anyone to whom Allah has granted a bounty. 'Abdullah Radiyallahu 'anhu said: This is that which has raised you to that rank, and this is that which is beyond our ability. (Musnad Ahmad, Bazzar, Majma'uz-Zawaid)  
 
 
 
previous   Next